জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে ভুটানের সঙ্গে চুক্তি

বাংলামেইল :  জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে ভুটানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করবে বাংলাদেশ। এটি হবে ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা,  যাতে বাংলাদেশ ও ভুটানের সঙ্গে থাকবে ভারত। বিশ্বব্যাংকসহ বিভিন্ন দাতা সংস্থা এ প্রকল্পে বিনিয়োগে আগ্রহী।

বিদ্যুৎ বিভাগের একটি সূত্র জানিয়েছে, ইতোমধ্যে সমঝোতা স্মারকের একটি খসড়া বাংলাদেশ এবং ভারতে পাঠিয়েছে ভুটান। এমওইউ এর খসড়া নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোর সঙ্গে গত সপ্তাহে বৈঠক করেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। বিদ্যুৎ সচিব মনোয়ার ইসলাম এতে  সভাপতিত্ব করেন।

ভুটান ও নেপালের বিশাল জলবিদ্যুৎ সম্ভাবনাকে কাজে লাগিতে দীর্ঘদিন থেকে চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। তবে এ বিদ্যুৎ আনতে ভারতের সম্মতি প্রয়োজন। কারণ এর জন্য ভারতের ভেতর দিয়ে করিডোর সুবিধা প্রয়োজন। দেশটি দীর্ঘদিন এ বিষয়ে রাজি হয়নি। তবে গতবছর কয়েকটি ধারাবাহিক বৈঠকের পর সম্মতি দিয়েছে। দাতারাও আন্তঃসীমান্ত বিদ্যুৎ বিনিময়ে আগ্রহ দেখিয়েছে। বাংলাদেশ-ভারত বিদ্যুত বিনিময়ে বিনিয়োগে অগ্রহী।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে জানান, নেপাল ও ভুটানের  জলবিদ্যুৎ খাতে এক বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে বাংলাদেশ ।

বিদ্যুৎ বিভাগের একজন কর্মকর্তা জানান, আপাতত সরকারি পর্যায়ে ভুটানে প্রকল্প করা হবে। তবে ভবিষ্যতে দেশের বেসরকারীখাতও ভুটানে বিনিয়োগ করতে পারবে।

তথ্য মতে, ভুটানে ২৫ হাজার মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের সুযোগ রয়েছে। বর্তমানে দেশটি জল দিয়ে মাত্র এক হাজার ৪৪৮ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন করছে। এসব বিদ্যুতকেন্দ্রের বেশিরভাগ ভারতীয় অনুদান ও ঋণে নির্মাণ করা হয়েছে। সেখান থেকে ভারত স্বল্পমূল্যে বিদ্যুৎ আমদানি করছে।

২০২০ সালের মধ্যে আরও ১০ হাজার মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে কাজ করছে ভুটান। এরমধ্যে ভারতের সহযোগিতায় ১০টি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। যাদের উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ছয় হাজার ৩০০ মেগাওয়াট। যার সবটাই ভারত আমদানি করবে।

ভুটানের পাশাপাশি নেপালেও যৌথ বিনিয়োগে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের ইচ্ছে রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের। বাংলাদেশ বর্তমানে ভারত থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করছে। চলতি মাস থেকে আরো ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুত আমদানি শুরু হবে। এছাড়া ভারত থেকে আরো ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানীর প্রক্রিয়া চলছে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like