বাংলাদেশের টার্গেট অনাবাসী পর্যটক

Tourist_BG_643822243বাংলানিউজ : বাংলাদেশি বংশদ্ভূত বিদেশিদের টার্গেট করে পর্যটন এগিয়ে নেওয়ার প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান।

তিনি বলেন, টার্গেট করছি এনআরবি (নন রেসিডেন্ট বাংলাদেশি)। তারা দেশে বেড়াতে আসেন, বিয়ে করেন। আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে যান, কিন্তু বাংলাদেশে হলিডে করেন না।

মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরে লা মেরিডিয়ানে বাংলাদেশ পর্যটন বোর্ড ও ভ্রমণ বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘ভ্রমণ’ আয়োজিত একটি সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, টুরিজ্যম খাতে খুব কম টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি। ইতোমধ্যে বিদেশে বাংলাদেশের সব দূতাবাসে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

পর্যটনবান্ধব মানসিকতা গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ট্যুরিস্টদের ঠকানোর একটা ব্যাপার থাকে। এটা বন্ধ করতে হবে। গার্মেন্টস খাতের পরেই ট্যুরিজমকে আমরা দেশের সবচেয়ে বড় আয়ের খাত হিসেবে গড়ে তুলতে পারি।

২০১০ থেকে ট্যুরিজম থ্রাস্ট সেক্টর হিসেবে বিবেচিত জানিয়ে তিনি বলেন, এখন ট্যুরিজম উন্নয়নে আমরা টার্গেট অরিয়েন্টেড হয়েছি। কক্সবাজার বিমানবন্দর আধুনিকায়ন শুরু হয়েছে। ট্যুরিজম আমদের টার্গেট অরিয়েন্টেড। সেখানে এক্সক্লুসিভ ট্যুরিস্ট এরিয়া করা হচ্ছে। অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজমেরও উন্নয়ন ঘটানো হচ্ছে।

পর্যটকদের নিরাপত্তা একটি বড় প্রশ্ন উল্লেখ করে তিনি বলেন, পর্যটন এলাকাগুলোতে সার্বক্ষণিক ট্যুরিস্ট পুলিশ কাজ করছে।

গত বছর বাংলাদেশে ৫ লাখ ৬০ হাজার পর্যটক এসেছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এ সংখ্যা আমরা ১০ লাখে উত্তীর্ণ করার পরিকল্পনা নিয়েছি।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ রাশেদুল হাসান।

আরও বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন আহমেদ, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা গীতি আরা সাফিয়া চৌধুরী, ঢাকা চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির চেয়ারম্যন মো. সবুর খান।

সেমিনার সঞ্চালনা করেন ‘ভ্রমণ’ ম্যাগাজিন সম্পাদক আবু সুফিয়ান।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like