সর্দি-কাশি শীতজুড়ে

5a19ec7fdb8ffba8093fb039536fa7b5-11কক্সবাজারটাইমস ডেস্কঃ শীতের মৌসুমে সর্দি-কাশি-হাঁচি বা নাক বন্ধ হওয়ার সমস্যা হতেই পারে। তবে কারও কারও এমন সমস্যায় ভুগতে হয় পুরো শীতকালটাই। এই সময়টা তাই এদের দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। এর প্রধান কারণ ঠান্ডা সংবেদনশীলতা বা কোল্ড অ্যালার্জি।

গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি চারজনের মধ্যে অন্তত একজন অ্যালার্জির সমস্যায় ভোগেন। একটা সময় অ্যালার্জি বলতে মূলত বিভিন্ন খাবারের প্রতি অ্যালার্জিকে বোঝানো হতো। আসলে ঠান্ডা কিংবা ধুলাবালু, আবর্জনা বা পরিবেশের অন্য উপাদানের প্রতি অ্যালার্জির কারণে সর্দি, হাঁচি বা নাকবন্ধ হওয়ার মতো সমস্যা প্রায়ই হয়।
শীতের সময়টাতে পুরোনো শীতপোশাক, কম্বল, লেপ বা কাঁথা বের করতে গিয়েও এ ধরনের সমস্যা শুরু হতে পারে। দীর্ঘদিন অব্যবহৃত বিছানা বা ঘর পরিষ্কার করতে গিয়েও হতে পারে এমনটা। সমস্যা শুরু হতে পারে রান্নাঘরের ধোঁয়া থেকেও।
শীতের সময় ভাইরাসের সংক্রমণের কারণেও হাঁচি, কাশি, সর্দি বা নাকবন্ধ সমস্যা পড়তে পারেন। তাই সবই যে অ্যালার্জিজনিত সেটা ধরে নেওয়া ঠিক নয়।
করণীয়
নির্দিষ্ট কোনো কারণে সমস্যা বারবার হচ্ছে কি না তা খুঁজে বের করতে চেষ্টা করুন। ঠান্ডা হাওয়া মূল কারণ হয়ে থাকলে তা থেকে দূরে থাকতে চেষ্টা করুন। ধুলা বা ধোঁয়ায় গেলে যাঁদের এ সমস্যাগুলো হয়, তাঁদের ধুলা বা ধোঁয়া থেকে দূরে থাকতে হবে। অর্থাৎ যে ব্যক্তির যে নির্দিষ্ট জিনিসটিতে অ্যালার্জি রয়েছে, তাঁকে সেটির সংস্পর্শ পরিহার করতে হবে।

জেনে রাখুন

এসব সমস্যায় যাঁরা সব সময় ভোগেন, তাঁদের নাকের ভেতরের মাংস বেড়ে যাওয়ার সমস্যা হতে পারে। এটিকে পলিপ ভেবে অনেকে ভুল করেন। এ বিষয়ে সচেতনতা প্রয়োজন। অনেকে মনে করেন, অ্যালার্জির রোগীরা অস্ত্রোপচার করালেই সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠবেন, এমন ধারণা একেবারেই ঠিক নয়। অ্যালার্জির রোগীর সম্পূর্ণ সুস্থতার জন্য কোনো ধরনের অস্ত্রোপচারের সুযোগ নেই। এটা পুরোপুরি নিরাময় হবে না। তাই সব সময়ই সতর্ক থাকতে হবে।

অধ্যাপক এ এফ মহিউদ্দিন খান

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like