পেকুয়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখল

নিষেধাজ্ঞা-অমান্য-2নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজারটাইমসডটকম, ০৩ জানুয়ারি: পেকুয়া উপজেলার মগনামায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে লবণ চাষের জমি জবরদখল করার আভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে চাষাবাদ করতে না পেরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জমি মালিক মোকতার হোসেন।
পেকুয়া পশ্চিম মগনামার মৃত হাজী আবদুল খালেকের ছেলে মোকতার হোছেন বাদী হয়ে কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুস সোবহান এর আদালতে মগনামা মগঘোনা এলাকার সাইফুল ইসলাম সহ ৮ জনের বিরুদ্ধে ফৌঃ কাঃ বিধির ১৪৪ ধারা মতে আবেদন করেন। ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুস সোবহান এর আদালত যাচাই পূর্বক সার্বিক বিবেচনায় সাইফুল ইসলাম গং এর বিরুদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করা হয়। একই সাথে কেন স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চুড়ান্ত করা হবেনা বিবাদী সাইফুল ইসলাম গংকে কারণ দর্শাতে ১৩ জানুয়ারী পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পেকুয়া থানার ওসিকে নির্দেশ দেয়া হয়।
এর পূর্বে বিরোধীয় জমির বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা মতে পেকুয়া থানা পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন দেন। ওই প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, “৪টি দলিল মূলে ৮১.৮৫ শতক জমি ক্রয় করেন মোকতার হোছেন। যার নামজারী জমাভাগ সৃজিত খতিয়ান (নং- ২৫৬৩) সৃজন করা হয়। জমি ক্রয় পরবর্তী ভোগদখলেও ছিলেন। লবণ উৎপাদনের লক্ষে চলতি মৌসুমে জমি তৈরী করার সময় মোকতার হোছেনের মালিকানাধিন ওই জমির বেশ কিছু অংশ সাইফুল ইসলাম গং দখল করে নেয়।” প্রতিবেদনে জমি মালিক তার প্রাপ্ত জমিতে চাষাবাদ করতে গেলে সংঘর্ষের আশংকার কথাও উল্লেখ করা হয়।
জমি মালিক মোকতার হোছেন তার জমি উদ্ধারে পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like